সাড়ে তিন বছরের অধিক সময় পর জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ১৪৯ সদস্যের আংশিক পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দিয়েছে বিএনপি।

 শনিবার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে এই কমিটি অনুমোদন দেন।

২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর সদ্য প্রয়াত শফিউল বারী বাবুকে সভাপতি ও জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭ সদস্যের আংশিক কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছিলে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সহসভাপতি গোলাম সারোয়ার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ ও সাদরেজ জামান এবং সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসীন আলী।

২৮ জুলাই শফিউল বারী বাবু ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপর ওই পদে সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নিয়োগ দেয়া হয়।

আংশিক কমিটির সদস্যদের নিয়ে নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ৩০ জন সহসভাপতি, ২১ জন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ২৮ জনসহ সাধারণ সম্পাদক এবং ৫২ জন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক রয়েছে।

সহসভাপতিরা হলেন, গোলাম সারোয়ার, আসাদুজ্জামান নেসার, আনু মোহাম্মদ শামীম আজাদ, আজহারুল হক মুকুল, এ বি এম পারভেজ রেজা, লিটন মাহমুদ, শাহাবুদ্দিন মুন্না, ইকবাল আনসারী টিপু, চৌধুরী ওয়াহিদুর রহমান চয়ন, সুলতান মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন, মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, ওয়াহিদ ইমতিয়াজ বকুল, আসফ কবির চৌধুরী শ্বাশত, শরিফুল ইসলাম দুলু, জামাল হোসাইন তালুকদার, রফিক হাওলাদার, জামির হোসেন, এমদাদুল হক এমদাদ, আওলাদ হোসেন উজ্জ্বল, একেএম আবুল কালাম আজাদ, আরিফ হোসেন হাওলাদার(ঢাকা), শওকত আজম খাজা (চট্টগ্রাম), নুসরাত এলাহী রিজভী (রাজশাহী), তৈয়বুর রহমান (খুলনা), ফরহাদ চৌধুরী শামীম (সিলেট), ফরিদ উদ্দিন আহমেদ (বরিশাল), রাশেদ উন নবী খান বিপ্লব (রংপুর), শহিদুল আমিন খসরু (ময়মনসিংহ), সাহাবুদ্দিন ফারুক (কুমিল্লা) ও হাফিজুর রহমান (ফরিদপুর)

এছাড়া কোষাধ্যক্ষ, প্রচার, প্রকাশনা ও দফতর, স্বাস্থ্য, আইন বিষয়ক সম্পাদক ও সহসম্পাদক পদেও মনোয়ন দেয়া হয়েছে নতুন কমিটিতে।