মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ছাপার প্রতিবাদে পাকিস্তানে ব্যাপক বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। হাজারো মানুষ শুক্রবার দেশজুড়ে বিক্ষোভ করেছে। তারা ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক দিয়েছে। -রয়টার্স
এ সময় বিক্ষোভকারীরা ‘ফ্রান্স নিপাত যাক’ স্লোগান দেয়। ফ্রান্সের ব্যঙ্গাত্মক সাময়িকী ‘শার্লি এবদো’ কয়েক দিন আগে হযরত মুহম্মদ (স.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন পুনরায় প্রকাশ করে। ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে এ কার্টুন প্রকাশ করার পর সাময়িকীটির কার্যালয়ে হামলা চালায় বিক্ষুব্ধ জনতা।সম্প্রতি ওই হামলার ঘটনায় বিচার শুরু হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের হাতে প্ল্যাকার্ড ছিলো। এতে অভিযুক্তদের ফাঁসির দাবি জানানো হয়। ২০০৫ সালে ডেনমার্কের সংবাদপত্র জ্যালিয়ান্ডস-পোস্টেন প্রথম হযরত মুহম্মদ (স.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ করে। এতে মুসলিমদের মধ্যে ক্ষোভ জন্ম নেয়। পাকিস্তানের সব চেয়ে বড় শহর করাচিতে এ বিক্ষোভের ডাক দেয় ইসলামপন্থি দল তেহরিক-ই-লাইবাক পাকিস্তান (এলটিপি)। একই সঙ্গে রাওয়ালপিন্ডি, পেশওয়ার, লাহোর ও দেরা ইসলাম খানে বিক্ষোভ করা হয়েছে। এতে শহরগুলো স্থবির হয়ে পড়ে।

টিএলপি নেতা রাজি হুসেইন বলেন, হযরত মুহম্মদ (স.) এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন পুনরায় প্রকাশ করা সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মধ্যে পড়ে। এটা ধর্ম অবমাননার অপরাধ। ২০১৫ সালেও একই ধরনের বিক্ষোভ হয়েছিলো পাকিস্তানে। পাকিস্তান সরকারও এ কার্টুন ছাপার নিন্দা জানিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশী বলেন, তারা মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে। কিন্তু স্বাধীনতার মানে এই নয় যে, কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়া। এটা এক ধরনের অপরাধ।