গুঞ্জন ছিল আগে থেকেই। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি তো সরাসরিই বলেছিলেন, এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গেছে। তবে সেপ্টেম্বরের এই টুর্নামেন্ট স্থগিত করার কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা তখনো আসেনি। অবশেষে বৃহস্পতিবার এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) এই আসর স্থগিতের কথা জানিয়ে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছে।

এসিসি জানায়, তারা এই আসর ২০২১ সালের জুনে আয়োজনের জন্য কাজ করছে।

করোনাভাইরাসের কারণে একের পর এক সিরিজ বা আসর যখন স্থগিত হচ্ছিল, তখন কিছু দিন আগে এসিসির বৈঠকে এশিয়া কাপ নিয়ে ইতিবাচক আলোচনাই হয়েছিল। নির্ধারিত সময়েই তারা আসর আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল। তবে পরবর্তী সময়ে তাদের সেই ভাবনায় বদল আসে।

বিবৃতিতে এসিসি বলেছে, নির্ধারিত সূচি অনুযায়ীই এশিয়া কাপ আয়োজনের ভাবনা ছিল তাদের। কিন্তু ভ্রমণনিষেধাজ্ঞা, দেশে দেশে হোম কোয়ারেন্টাইনের বিভিন্ন নিয়ম, মৌলিক স্বাস্থ্য ঝুঁকি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নিয়মের মধ্যে এশিয়া কাপ আয়োজন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। এসব বিবেচনায় আসর পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এবারের এশিয়া কাপ হওয়ার কথা ছিল পাকিস্তানে। তবে ভারত পাকিস্তানে গিয়ে খেলতে আপত্তি জানানোয় আসরটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে হবে বলে শোনা যাচ্ছিল। পরবর্তীতে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আসর অদল-বদল করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

বিবৃতিতে এসিসি জানিয়েছে, ২০২১ সালে এশিয়া কাপ হলে সেটি শ্রীলঙ্কাতেই হবে। আর পাকিস্তান ২০২২ এশিয়া কাপ আয়োজন করবে।