ঔষধ প্রশাসন গণস্বাস্থের কিটের নিবন্ধন করার অনুমতি না দিয়ে জনগনের অধিকারের প্রতি অন্যায় ও দেশের প্রতি শত্রুতা করছে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। শনিবার গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল ধানমন্ডির শাখায় কিডনি ডাইলোসিস অবস্থায় তিনি এ মন্তব্য করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দফতর সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, জনগণের কথা চিন্তা করে বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবেলার লক্ষ্যে সরকারের উচিত ছিল গণস্বাস্থ্য আবিষ্কৃত কীটের অনুমোদন দেয়া। ঔষধ প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তে আমরা বিস্মৃত। আমরা এবিষয়ে সবার সাথে আলোচনা করে পরবর্তীতে পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

এদিকে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে তার চিকিৎসক জানান, তার শরীরে জ্বর আছো। কথা বলেন আস্তে আস্তে। নিয়মিত এন্টিবায়োটিক দিতে হচ্ছে। নিয়মিত কিডনি ডাইলোসিস করছেন। শরীর দূর্বল। অক্সিজেন প্রয়োজন হয়না। তার শরীরে করোনাভাইরাস ইনফেকশন নাই তবে নতুন ব্যাকটেরিয়া পাওয়া গেছে এবং ইনফেকশনও আছে। তাকে আরো বেশ কিছুদিন দিন হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিতে হবে।’

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বর্তমানে তার নিজের স্থাপিত প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে অধ্যাপক ডা. ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) মামুন মোস্তাফি এবং অধ্যাপক ডা. নাজিব মোহাম্মদ এর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন।