ভারতের কাছে ২০১১ বিশ্বকাপ বিক্রি করে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা- এমন গুরুতর অভিযোগে তোলপাড় ক্রিকেট দুনিয়া।

সিরিসা টিভিকে তিনি বলেছেন, আজ বলছি আমরা ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল বিক্রি করেছি। আমি তখনকার ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলাম। আর এই কথাটা আমি বিশ্বাস করি।

তবে সেই ম্যাচে অংশ নেয়া খেলোয়াড়রা এ ফিক্সিংয়ে জড়িত নন বলে মনে করছেন তিনি।

তিনি বলেন, ২০১১ তে আমরা জয়ের পথেই ছিলাম। কিন্তু ম্যাচটা আমরা বিক্রি করেছি। এতোদিন সেই ঘটনার কথা ফাঁস করিনি। মনে হচ্ছে এখন এটা নিয়ে কথা বলা যায়। খেলোয়াড়দের জড়াচ্ছি না। তবে কিছু জায়গা জড়িত ছিল।

ওই ম্যাচ হওয়ার পর থেকেই একে ঘিরে নানা গুঞ্জন, জল্পনা চলে আসছে ক্রিকেটবিশ্বে। সেদিনের ম্যাচে লংকান ক্রিকেটারদের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে নানা মহলে।

ম্যাচটি পাতানো হয়েছিল বলে অভিযোগ তুলেছিলেন খোদ শ্রীলংকার ’৯৬ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গা। ওই ম্যাচে ধারাভাষ্য দিয়েছিলেন তিনি।

২০১৭ সালে রানাতুঙ্গা বলেছিলেন, ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত। আমি মনে করি না শ্রীলঙ্কাকে এতো সহজে হারাতে পারত ভারত।

রানাতুঙ্গার সেই অভিযোগের পর থেকে মাঝেমধ্যেই ম্যাচটি পাতানো ছিল কিনা প্রশ্নে নানা বিশ্লেষণ করেছেন বিশ্লেষকেরা।

বৃহস্পতিবার শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর এমন বক্তব্যে বিষয়টি ফের মাথা চারা দিয়ে উঠল।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড় স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের সেই ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৭৪ রানের লড়াকু সংগ্রহ গড়েছিল শ্রীলঙ্কা। তিনশ থেকে ২৫ রানের কম টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।

দলের সেরা খেলোয়াড় শচীন টেন্ডুলকারকে মাত্র ১৮ রানেই হারিয়ে ফেলে তারা।

কিন্তু হঠাৎ করেই লঙ্কানদের বাজে বোলিং আর ফিল্ডিংয়ে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। ম্যাচ বের করে শিরোপা ঘরে নিয়ে ফেরে ম্যান ইন ব্লুরা।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি