স্টারলিংক প্রজেক্টে মহাকাশে ছোট ছোট মোট ১২,০০০ ব্রডব্যান্ড স্যাটেলাইট পাঠায় মার্কিন এরোস্পেস ম্যানুফ্যাকচারার এবং স্পেস ট্রান্সপোর্টেশন সংস্থা spaceX.

১৯ এপ্রিল (রবিবার) রাত ৯ টা ২২ মিনিটে ক্যাম্ব্রিজশ্যার সহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন স্থান এবং যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কিছু স্থানের আকাশে হঠাৎ করে দেখা গেল এক গুচ্ছ তারকা (আলোক বিন্দু) সারিবদ্ধ ভাবে দ্রুত এগিয়ে চলেছে। একদম স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে। এক মুহূর্তের জন্য থমকে গেল সমস্ত পর্যবেক্ষক। ইউ.এফ.ও নাকি নতুন কোন মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী হতে চললো পৃথিবীবাসী? ফটোগ্রাফি থেকে শুরু করে টুইটারে পোস্ট দেয়া, কিচ্ছুটি বাদ যায়নি সেই কৌতুহলকে ঘিরে।

আলোক বিন্দুগুলো মূলত ছিল এলন মাস্কের নতুন লঞ্চ করা প্রজেক্ট ‘স্টারলিঙ্ক’ এর পাঠানো স্যাটেলাইটগুলোর এগিয়ে চলার এক অসাধারন দুর্লভ দৃশ্য। ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে স্টারলিংক প্রজেক্টে মহাকাশে ছোট ছোট মোট ৪২,০০০ ব্রডব্যান্ড স্যাটেলাইট পাঠানোর ঘোষনা দেয় মার্কিন এরোস্পেস ম্যানুফ্যাকচারার এবং স্পেস ট্রান্সপোর্টেশন সংস্থা spaceX। গত বছর থেকে যাত্রা শুরু করে এ পর্যন্ত প্রায় ৩৬০ টি স্যাটেলাইট সফলভাবে মহাকাশে পাঠাতে সক্ষম হয়েছে সংস্থাটি। নিচে এ দৃশ্যের একটি ভিডিও দেয়া হল।

একই সঙ্গে অনেকগুলো স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করায় এ রকম স্যাটেলাইটের সারি চোখে পড়েছে। পৃথিবীকে নিম্ন অরবিট সমূহে অল্প কয়েকদিনের জন্য প্রতি রাতে অন্তত দুই থেকে তিনবার প্রদক্ষিণ করবে স্টারলিংক স্যাটেলাইট নেটওয়ার্কের এই ‘ট্রেনটি’। এরপর ধীরে ধীরে তাদের নির্ধারিত কক্ষপথে পৌছে গেলে এগুলোকে আর দেখা যাবেনা। সব ধরণের স্যাটেলাইটের জন্য একটি নির্দিষ্ট উচ্চতার কক্ষপথ নির্ধারিত থাকে। সে কক্ষপথে পৌছানোর আগে প্রতিটি স্যাটেলাইটই পৃথিবীকে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত পরিক্রমণ করতে থাকে। আর এই সময়েই স্যাটেলাইটগুলোর এগিয়ে চলা খালি চোখেই দেখা যায়। অন্যান্য সময় তারকা আর স্যাটেলাইটের পার্থক্য বোঝা যায়না।

বাংলাদেশ থেকে দেখা যাবে কি?

আকাশে মেঘ না থাকলে বাংলাদেশ থেকে স্যাটেলাইটের ট্রেনটি দেখা যাবে ২৪ তারিখ পর্যন্ত। আজ (২১ এপ্রিল) রাত ৮ টা ৫৮ মিনিটে ৬ মিনিটের জন্য এবং রাত ১০ টা ৩৬ মিনিটে ৬ মিনিটের জন্য দেখা যাবে। একইভাবে ২২ তারিখ ভোর ৪.০৪, রাত ৯.৩৪ মিনিটে ২-৬ মিনিটের জন্য, ২৩ তারিখ ভোর ৩.০৬, রাত ১০.১০ মিনিটে ২-৬ মিনিটের জন্য এবং ২৪ তারিখ ভোর ৩.৪০, রাত ৯.১০ এবং রাত ১০.৪৬ মিনিটে ৪-৬ মিনিটের জন্য শেষবারের মত যাবে স্টারলিংকের উজ্জ্বল স্যাটেলাইট ট্রেন। তবে যেহেতু দৃশ্যমান হবার বিষয়টি বিভিন্ন নিয়ামকের উপর নির্ভর করে সেহেতু আপনার অবস্থান থেকে কতটুকু দেখা যাবে তার সম্পূর্ণ নিশ্চয়তা দেয়া যায় না। তবে এই লিংকে প্রবেশ করে আপনিও দেখে আসতে পারেন আপনার অবস্থান থেকে কখন দেখা যেতে পারে।

স্টারলিংক প্রজেক্ট সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত

মূলত পৃথিবীবাসীর জন্য ইন্টারনেট সুবিধা আরো উন্নত করতে এবং বিশেষত তথ্য প্রযুক্তির সুবিধাবঞ্চিত প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে ইন্টারনেট সুবিধা প্রদান করতে বিশ্বখ্যাত উদ্যোক্তা এলন মাস্কের অভিনব উদ্যোগ এই স্টারলিংক প্রজেক্ট। এ প্রজেক্টে প্রায় ৪২,০০০ এল.ই.ও স্যাটেলাইট (Low Earth Orbit Satellites) প্রেরণের পরিকল্পনা করা হয়েছিল যার মধ্যে ৩৬০ টি ইতিমধ্যে পাঠানো হয়ে গেছে। সর্বশেষ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা হয়েছে ১৮ মার্চ ২০২০ তারিখে এবং এই উৎক্ষেপিত স্যাটেলাইটগুলোই এখন দৃশ্যমান হয়ে চলেছে। স্টারলিংক প্রজেক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এই প্রেজেন্টেশনটি দেখে আসতে পারেন।
তবে মজার বিষয় হচ্ছে পরিকল্পনা ৪২,০০০ স্যাটেলাইট প্রেরণের হলেও, মার্কিন ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশন (এফসিসি) থেকে মাত্র ১২,০০০ স্যাটেলাইট প্রেরণের অনুমতি পেয়েছে স্পেস এক্স। বাকিগুলোর জন্য ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন (আইটিইউ) এর কাছে নথি জমা দিয়েছে এলন মাস্ক। তিনি নিজেই জানিয়েছেন এ অনুমোদন পেতে আরো ৭ বছর সময় লেগে যেতে পারে।